মাগুরায় ভোরের কুয়াশা জানান দিচ্ছে শীতের আগমন। Magura news

মনিরুল ইসলাম, বিশেষ প্রতিবেদক-
পঞ্জিকার হিসাবে এখন কার্তিক মাস শেষ। পৌষ আগমনের বাকি এক মাস। কিন্তু প্রকৃতি এখনই শীতের পরশ বুলিয়ে যাচ্ছে। ভোরে শিশিরসিক্ত করছে দূর্বাঘাস ও গাছপালা। সকালের কোমল রোদে মুক্তোদানার মতো জ্বলজ্বল করে। দিনে সূর্যের তাপের প্রখরতাও কমেছে। মাঠ-ঘাটে শ্রমজীবীরা একটু স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলতে পারছেন। পশ্চিমাকাশে সূর্য ঢলে পড়লে আরাম বোধ যেন আরও বেড়ে যায়। সকালের মতোই সন্ধ্যার পল্লি যেন নীল কুয়াশার আঁচলে আচ্ছাদিত হয়ে যায় পরম মমতায়। গ্রামবাংলা তো বটেই, শহরেও কখনো যায় শিরশিরে উত্তরা সমীরণ। রাত যত বাড়ে, তত শীতের অনুভবও বৃদ্ধি পায়। প্রকৃতির এই পরিবর্তন বার্তা দিচ্ছে এই বুঝি শীত এলো।
 মাগুরার শালিখায় মঙ্গলবার শতখালী ইউনিয়নের হরিশপুুর  এলাকায় কুয়াশা দেখা যায়।ভোরের কুয়াশা আর রাতে ঠান্ডা জানান দিচ্ছে শীতের আগমনী বার্তা। কুয়াশাভেদ করে পূর্ব দিগন্তে উঁকি দিচ্ছে সূর্য। এভাবেই শীতের আগমন শুরু হয়েছে মাগুরায়।
এলাকায় ভোরে কুয়াশার ভেতরে সূর্যকে দেখে শীতের আগমন টের পাওয়া যাচ্ছিল। তবে শীত এখনো জাঁকিয়ে বসেনি। শীতের বার্তা কড়া নাড়া শুরু করেছে।
লেপ, কম্বল বের করতে শুরু করেছে বাড়ির গৃহিণীরা। দিনে গরম, রাতে শীতল হাওয়া আর ভোরের ঘন কুয়াশা বলে দিচ্ছে শীত আর দূরে নেই। কুয়াশামাখা প্রকৃতি আর ঘনিয়ে আসছে মাঠে মাঠে ফসল কাটার সময়, কৃষকের চোখেমুখে আনন্দের রেখা।
উৎসব আর আনন্দের মাঝে উপজেলার অনেক গ্রামে শুরু হয়েছে আগাম ধান কাটা। গ্রামাঞ্চলে একটু বেশি কুয়াশা পড়তে শুরু করেছে। মাগুরায় এখনো সেভাবে শীত অনুভূত না হলেও শেষ রাতে শীতের আমেজ টের পাওয়া যাচ্ছে। শীত জেঁকে বসার আগেই শালিখায় লেপ-তোশক তৈরির ধুম লেগে গেছে।
ভোরে দেখা যায়, কুয়াশায় ঢেকে রয়েছে রাস্তা-ঘাট। কচি ঘাস ও ধানের পাতায় জড়িয়ে রয়েছে মুক্তোর মতো শিশির বিন্দু। ঘাসের ওপরও ভোরের সূর্য কিরণে হালকা লালচে রঙের ঝিলিক দিচ্ছে শিশির। এসব দৃশ্যই শীতের আগমনী বার্তা দিচ্ছে এই জনপদে।
কয়েক দিন সকালে দেখা মিলছে সাদা ঘন কুয়াশার। এই কুয়াশা জানান দিচ্ছে শীতের আগাম বার্তা। ঘন কুয়াশার চাদরে ঢাকা পড়ছে ভোরের সোনালি রোদ। উত্তর থেকে আসছে শিরশিরে বাতাস। গাছ থেকে মাত্র ঝরা শুরু করেছে  পাতা। মধ্য রাতে গায়ে লেপ,কম্বল চাপাচ্ছেন অনেকেই। তবে দিনে গরমের তীব্রতা  দিন দিন অনেকাংশে কমছে।
উপজেলার হরিশপুর গ্রামের ইনামুল কবির বলেন,  ভোরে দিন দিন ঘন কুয়াশা দেখা যাচ্ছে। দিনে কিছুটা গরম থাকলেও মধ্য রাত থেকে কুয়াশা পড়তে শুরু করে, সাথে শীতের অনুভূতি ও বাড়ে।এখন মধ্য রাত থেকে লেপ গায়ে দিতে হচ্ছে।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মো. আলমগীর হোসেন আজকের পত্রিকাকে বলেন, ‘বিগত কয়েক দিন ভোর ও মধ্য রাতে ও সকালে কুয়াশা পড়ছে। সামনে শীতের সঙ্গে তাপমাত্রা কমে আসতে শুরু করবে। উপজেলায় অন্যান্য এলাকা থেকে তুলনামুলক শীতকালীন ফসলের চাষ কম হয় সে হিসাবে ভালো ফলন হবে বলে আশা করছি। ইতিমধ্যে কৃষকদের শীতকালীন সবজি চাষে উৎসাহ ও বিভিন্ন পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।
December ২০২২
Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
« Nov    
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  

ফেসবুকে আমরা

বিভাগ

দিনপঞ্জিকা

December ২০২২
Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
« Nov    
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  
%d bloggers like this: