‘আপনার হাতে বাংলাদেশ’

মাগুরানিউজ.কমঃ

রাজীব মিত্র জয় –

এমনটা আগে কখনো দেখেনি বাঙ্গালি। ভয়ংকর এক সময় পার করছে বাংলাদেশে। দেশের একশ্রেণীর মানুষের কর্মকান্ড মহাসংকটের এ সময়ে দেশের নিরাপত্তা সংকটে ফেলেছে। অনেকেই বলছেন জীবানুর সঙ্গে যুদ্ধে তাদের ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ। সদ্য বিদেশ ফেরত কোয়ারেন্টিনের নির্দেশ লঙ্ঘনকারী নাগরিকেরা আপনারা যেটা করছেন তা এসময়ে ভয়ংকর থেকেও ভয়ংকর। আপনি আপনার পরিবার, দেশ ও জাতিকে অনিশ্চিত ভবিষ্যতের দিকে ঠেলে দিয়েছেন। জীবানুর সাথে অসম যুদ্ধে আপনার কর্মকান্ড বাংলাদেশকে চরম ঝুকি ও অনিশ্চয়তার মুখে ফেলেছে। আর মহাসংকটের এসময়ে তা একেবারেই ক্ষমার অযোগ্য। আপনাদেরকে ‘মানবতার শত্রু’ হিসেবে চিহ্নিত করার সময় এসেছে এমন মন্তব্যও করেছেন অনেকে।

কোয়ারেন্টিনের নির্দেশ লঙ্ঘনকারী দেশের প্রতিটি মানুষকে বলছি, দ্রুতই ফুরিয়ে যাচ্ছে সময়, ক্রমেই ভয়ংকর থেকে আরো ভয়ংকর হয়ে উঠেছে পরিস্থিতি। দেরি না করে সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী কোয়ারেন্টিনের নিয়ম মানতে এখনই শুরু করুন। নতুবা আপনি চিহ্নিত হবেন মানবতার শত্রু হিসেবে। দেশ ও জাতি কখনোই ক্ষমা করবেনা আপনাকে। আপনি যদি এসময়ে বিদেশ ফেরত হন তাহলে আর আত্মগোপনে থাকবেন না। তাছাড়া সরকারী ভাবেও এজন্য আপনাকে দন্ড পেতে হবে। কিন্তু সেসব অনেক পরের কথা, ভাবার আগেই হয়ত হারিয়ে যাবে অনেককিছু। ঘটবে এমন কিছু, যা কখনো ভাবেনি বাঙ্গালী।

কোয়ারেন্টিনের নির্দেশ লঙ্ঘনকারী দেশের প্রতিটি মানুষের প্রতি বিনীত অনুরোধ, মহাসংকটের এ সময়ে আপনি যদি আপনার পরিবার প্রতিবেশী বন্ধু স্বজন সর্বোপরী আপনার নিজের নিরাপত্তা চান, তাহলে আগে কোয়ারেনটাইনের নিয়ম মানুন তারপর অন্যকিছু। এমনিতেই দেরি হয়ে গেছে তাই আর অপেক্ষা নয়, এখনই স্বেচ্ছায় শুরু করুন এবং স্থানীয় প্রশাসনকে জানান। যারা আপনার জন্য শুরু থেকেই অপেক্ষায় আছে।

করোনাভাইরাসের ঝুঁকিতে থাকা ব্যক্তিদের টানা ১৪দিন কোয়ারেন্টিন এ রাখা এর সংক্রমণ ঠেকানোর একমাত্র উপায় বলে শুরু থেকেই জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। বাংলাদেশ শুরুতে এই প্রয়োজনীয়তাকে সেভাবে গুরুত্ব দেয়নি, পরে দিলেও গুরুত্ব দেয়নি জনগন। কোয়ারেন্টিনের প্রয়োজনীয়তা নিয়ে যদি মানুষ সজাগ না হন তাহলে শুধুমাত্র আইন দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করা রীতিমত অসম্ভব। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পক্ষ থেকে শুরু থেকেই বলা হচ্ছে যে হোম কোয়ারেন্টিন ছাড়া কোন সংক্রামক ব্যাধি নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব নয়।

দেশবাসি, জেনেবুঝে নিজে ও পরিবারকে গৃহবন্দী রাখুন। আপাতত একটানা দুই সপ্তাহ বিচছিন্ন হয়ে যান সব কিছু থেকে। অনেকটা সময় আমরা অবহেলায় পেরিয়ে এসেছি। এখন ভয়ংকর সময় চলছে। একইসাথে আশার কথা হলো, বৈশ্বিক যে শিক্ষা আমরা পেয়েছি সেটা আমাদের জন্য বিশেষ সহায়ক হতে পারে। সকলের প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় একটি কার্যকরী প্রতিরোধ ব্যবস্থা গড়ে তুলতে পারবো। যেহেতু এ লড়াই জীবানুর সাথে তাই সংক্রমনের সুযোগ না দিলেই তা আপনার জন্য প্রধান অস্ত্র বা প্রতিবন্ধকতা হয়ে উঠবে। জেনেবুঝে নিজে ও পরিবারকে স্বেচ্ছায় গৃহবন্দী রাখুন। আপাতত একটানা দুই সপ্তাহ বিচছিন্ন হয়ে যান সব কিছু থেকে। নিজেকে ও পরিবারকে সুরক্ষিত রাখুন, এ যুদ্ধে এটাই আপনার প্রধান রক্ষাকবচ। কোন অসংগতি দেখলে অবশ্যই সেটা জানান। করোনামুক্তিতে বাংলাদেশকে সহযোগীতা করুন।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সবসময় আমাদের সাথে আছেন। আপনি আমি আমাদের সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় নিশ্চিত বৈশ্বিক এ মহামারি থেকে উত্তোরণ ঘটবে বাংলাদেশের।

রাজীব মিত্র জয়, আইনজীবী ও সেবা উন্নয়ন বিশেষজ্ঞ, প্রধান নির্বাহী টিম বি।



October ২০২০
Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
« Sep    
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১  

ফেসবুকে আমরা

বিভাগ

দিনপঞ্জিকা

October ২০২০
Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
« Sep    
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০৩১