শ্রীপুরে নকল সার ও কিটনাশক কারখানা সিলগালা জরিমানা। Magura news

মহসিন মোল্যা, বিশেষ প্রতিবেদক-

শ্রীপুর উপজেলার মাটিকাটা এলাকায় অভিযান চালিয়ে নকল জিংক তৈরীর কারখানা, দোকান সিলগালা ও লাইসেন্স বাজেয়াপ্ত করেছে উপজেলা প্রশাসনশ্রীপুরে নকল সার ও কিটনাশক কারখানা সিলগালা জরিমানাও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সমন্বয়ে গঠিত টিম।

একইসাথে কারখানা থেকে ভেজাল সার, কীটনাশক, ভেজাল সার ও কিটনাশক তৈরির বিভিন্ন সরঞ্জাম জব্দ করা হয়েছে। এছাড়া ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে মেসার্স খান এন্টারপ্রাইজের মালিক আজগর আলী খানকে এক লাখ টাকা জরিমানা ও ৬ মাসের কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ সালমা জাহান নিপা বলেন, ঘাসিয়াড়া ও কমলাপুর মাঠে নকল ঔষধ প্রয়োগে পেঁয়াজ নষ্টের বিষয়ে লিখিত অভিযোগ করেন চাষিরা। পরে মেসার্স খান ট্রেডার্সে অভিযান চালিয়ে জিংক এবং এন্টাকল ল্যাব টেষ্টে পাঠানো হয়। কিন্তু জিংকের ল্যাব টেষ্ট যেখানে ৩৬ থাকার কথা সেখানে ৩.৬ এসেছে। এরই পরিস্থিতিতে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান পরিচালিত হয়েছে।

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা রুপালী খাতুন জানান, মাটিকাটা গ্রামের একটি বাড়িতে মিনি নকল জিংক তৈরীর কারখানায় নকল জিংক ও কীটনাশক প্যাকেজিং করে তা বিপণন করা হয়। এমন সংবাদের ভিত্তিতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উপজেলা কমিশনার (ভূমি) শ্যামানন্দ কুন্ডুর নেতৃত্বে বুধবার বিকেলে সেখানে ভ্রাম্যমাণ আদালত গঠন করে অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযান পরিচালনার সময় শ্রীপুর থানার পুলিশ ও উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।

ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায় বিভিন্ন নিম্নমানের জিংক সার প্যাকেটে প্যাকেজিং করা হচ্ছে। একইভাবে কীটনাশকের বোতল পরিবর্তন করা হয়। এছাড়া বিভিন্ন নামিদামি কোম্পানির নামে প্যাকেজিং ও লেভেল লাগিয়ে বাজারজাত করা হয়। সেখান থেকে মেয়াদোত্তীর্ন কিটনাশক, খান জিংক, বিভিন্ন কোম্পানির স্টিকার, লেভেল ও ক্যামিক্যাল জব্দ করা হয়।

অভিযানকালে কারখানা থেকে আজগর আলী খানকে হাতেনাতে ধরা হয়। এসময় আদালত তাকে এক লাখ টাকা জরিমানা করেন, ৬ মাসের কারাদণ্ড এবং কারখানা ও দোকান সিলগালা করার রায় দেওয়া হয়। উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) শ্যামানন্দ কুন্ডু ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে আজগর আলী নামে এক ব্যক্তির কাছ থেকে এক লাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। তাকে ৬ মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। তার বাড়িতে নকল কারখানা ও দোকান সিলগালা করা হয়েছে। এবং বিপুল সংখ্যক খালি নতুন প্যাকেট, লেভেল ও কিটনাশক জব্দ করা হয়েছে। জব্দকৃত কিছু কীটনাশক ধ্বংস এবং আলামত হিসেবে কিছু রাখা হয়েছে।

উল্লেখ্য, চলতি মৌসুমে এই দোকানের কীটনাশক ব্যবহার করে উপজেলার কমলাপুর ও ঘাসিয়াড়া মাঠের অন্তত ১০ জন কৃষকের প্রায় ৭ একর জমির পেঁয়াজ একেবারে নষ্ট হয়ে যায়। এ বিষয়ে মাগুরা নিউজে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছিলো। ডিলারের শাস্তির সংবাদে কৃষকদের মধ্যে স্বস্তি ফিরে এসেছে।

July ২০২২
Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
« Jun    
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১

ফেসবুকে আমরা

বিভাগ

দিনপঞ্জিকা

July ২০২২
Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
« Jun    
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
%d bloggers like this: