বাংলাদেশ ফজিলাতুন্নেসার নামে পদ্মা সেতুর নামকরণ

ফজিলাতুন্নেসার নামে পদ্মা সেতুর নামকরণ

মাগুরানিউজ.কম:  

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের সহধর্মিনী বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিবের নামে পদ্মা সেতু করার প্রস্তাব করা হয়েছে জাতীয় সংসদে। বৃহস্পতিবার দশম জাতীয় সংসদের 140619-padha-bridge_350_263দ্বিতীয় (বাজেট) অধিবেশনে পয়েন্ট অব অর্ডারে দাঁড়িয়ে এই প্রস্তাব করেন বিরোধী দলীয় সংসদ সদস্য কাজী ফিরোজ রশিদ।

 

এর পরেই পয়েন্ট অব অর্ডারে দাঁড়িয়ে ওই প্রস্তাব সমর্থন করেছেন সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী ও সতন্ত্র জোট নেতা হাজী মো. সেলিম।

 

ফিরোজ রশিদ বলেন, “জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সঙ্গে পরিণয় সূত্রে আবদ্ধ হওয়ার পর যত রাজনীতি সংগ্রাম হয়েছে তাতে ছায়ার মতো সাহস যুগিয়ে গেছেন বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিব।

 

তিনি বলেন, “বঙ্গবন্ধু রাজনৈতিক জীবনে অনেক ত্যাগ তিতীক্ষায় বিমূর্ত প্রতীক ছিলেন তার সমধর্মিনী। বঙ্গবন্ধু যতবার জেলে গেছেন, বন্দি ছিলেন, রাজনৈতিক হয়রানির শিকার হয়েছেন ততবারই সঠিক দিক নির্দেশনা দিয়ে পাশে থেকে দেশের মানুষকে ঐক্যবদ্ধ রেখেছেন। বঙ্গবন্ধুর অবর্তমানে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের পরামর্শ দিয়েছেন ঘরে বসেই। দৃঢ় মনবল নিয়ে অটল ছিলেন দেশের মানুষের মুক্তি সংগ্রামে।

 

বিরোধী দলের এই নেতা বলেন, “প্রকাশ্যে না এসেও তিনি মানুষের কল্যাণ সাধণায় ব্রতী ছিলেন। সুখে দু:খে বঙ্গবন্ধুর পাশে ছিলেন বলেই বঙ্গবন্ধু সত্যিকার অর্থেই জাতির জনক হতে পেরেছিলেন। করুণ মৃত্যুও বঙ্গবন্ধুর কাছ থেকে তাকে বিছিন্ন করতে পারেনি।

 

তিনি বলেন, “স্বাধীনতার পর এই বঙ্গজননীকে যদি বিন্দুমাত্র সম্মান জানানোর থাকে তাহলে তার নামে পদ্মা সেতুর করা হোক। এটা সারা দেশের সাধারণ মানুষের ঐকান্তিক চাওয়া।

 

ফিরোজ রশীদের বক্তব্যেও পরেই পয়েন্ট অব অর্ডারে দাড়িয়ে তার প্রস্তাব সমর্থন করেন সাজেদা চৌধুরী। বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিব সম্পর্কে স্মতিচারণ করে তিনি বলেন, “বঙ্গবন্ধুর বাড়ীতে গেলেই তিনি দেশ ও মানুষের খোঁজ খবর নিতেন। রাজনৈতিক নানা পরামর্শ দিতেন। এমনকি বঙ্গবন্ধু যখন জেলে থাকতেন তখন তিনি আওয়ামী লীগের নেতাদের ডেকে পরামর্শ দিতেন।

 

তিনি বলেন, “প্রতিকূল সংগ্রামে তিনি সব সময় সাহস দিতেন। স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় তিনি আমাদের নেতাদের ভেঙে না পরে যুদ্ধ চালিয়ে যাওয়ার অনুপ্রেরণা দিতেন। ঘরে বসেই তিনি খোঁজ রাখতেন মাঠের রাজনীতি আর দেশ স্বাধীনতা সংগ্রামের সব খুঁটিনাটি। এই বীর নারীর জন্য তেমন কোনো স্মৃতি স্মারক তৈরি করতে পারেনি আমরা।

 

এজন্য অনেক সংগ্রামের অনেক আশা আর স্বপ্নের পদ্মা সেতুর নাম বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিবের নামে নামকরণ করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, “বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিব নামেই পদ্মা সেতুর নামকরণ করা হোক।

 

সাজেদা চৌধুরীর পরে পয়েন্ট অব অর্ডারে দাঁড়ান দশম সংসদের সতন্ত্র সদস্যদের জোট নেতা হাজি মো. সেলিম। তিনিও বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিব নামেই পদ্মা সেতুর নামকরণের প্রস্তাব সমর্থন করেন।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

নভেম্বর ২০১৭
সোম মঙ্গল বুধ বৃহঃ শুক্র শনি রবি
« অক্টো    
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  

মাগুড়া সদর

ফেসবুকে আমরা