অর্থনীতিtitle_li=আজকের পত্রিকাtitle_li=কৃষি মাগুরায় সেচ সুবিধা বৃদ্ধি পাওয়ায় উৎপাদিত হচ্ছে অতিরিক্ত খাদ্য শস্য

মাগুরায় সেচ সুবিধা বৃদ্ধি পাওয়ায় উৎপাদিত হচ্ছে অতিরিক্ত খাদ্য শস্য

মাগুরানিউজ.কমঃ 

imagesমাগুরার সদর, শালিখা ও মহম্মদপুর উপজেলার বিভিন্ন বিল ও নিচু এলাকা সারা বছর জলাবদ্ধ থাকায় পতিত জমিতে তেমন কোন ফসল ফলাতে পারতেন না কৃষকরা। ফলে অভাবে দিন কাটছিল এসব এলাকার অনেক মানুষের। বর্তমান সরকার খাদ্য উৎপাদন বৃদ্ধি ও কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনের (বিএডিসি) মাধ্যমে এসব এলাকায় ২২ কিলোমিটার খাল খনন ও ১৫টি সেচ নালা তৈরির কাজ করায় এখানে চাষাবাদের সুযোগ সৃষ্টি হয়। ফলে এসব এলাকার মানুষের জীবনযাত্রায় দেখা দিয়েছে উন্নয়নের ছোঁয়া।

খাল সংলগ্ন বিলসহ নিচু এলাকার জমির জলাবদ্ধতা নিরসন হওয়ায় জেগে উঠা জমিতে কৃষকরা অতিরিক্ত ফসল ফলাতে পারছেন। এর পাশপাশি কর্মসংস্থান তৈরির সুযোগ সৃৃষ্টি হয়েছে এখানে। খাল সংলগ্ন এলাকার মানুষসহ মৎস্যজীবীরা কৃষি কাজসহ দেশীয় জাতের মাছসহ বিভিন্ন জাতের মাছ আহরণ করে আর্থিকভাবে লাভবান হচ্ছেন।

জানা গেছে, ২০১১ সালে কৃষি মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন- বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএডিসি) যশোর অঞ্চল কর্তৃক ‘জলাবদ্ধতা দূরীকরণ ও সেচ উন্নয়ন কর্মসূচির আওতায়’ মাগুরা জেলা সদর, শালিখা ও মহম্মদপুর উপজেলায় মোট ২২ কিলোমিটার খাল খননের মাধ্যমে জলাবদ্ধতা নিরসন, বিলের পানি সংরক্ষণ, নিষ্কাশন ও ১৫টি সেচ নালাসহ সেচ অবকাঠামো নির্মাণের পরিকল্পনা অংশ হিসেবে এসব খাল খনন ও সেচ নালা নির্মাণসহ বিভিন্ন উন্নয়ন কর্যক্রম হাতে নেয়া হয়।

২০১৪ সালের জুন মাস পর্যন্ত গত ৩ অর্থ বছরে প্রকল্প মেয়াদে জলাবদ্ধতা নিরসনের জন্য এ তিন উপজেলার পাকার বিল, হাজিপুর নি¤œাঞ্চল, জগদাল, কাটাখালি, ভুলবাড়িয়া, বারেঙ্গা, বেতবাড়িয়া, জামাতার বিল, কালার বিল, কাজলকোটা বিল, ভড়ভড়িয়া, পুতিয়ার বিল, লতার বিল, দেলুয়াবাড়ি বিল, নরপতি বিল এলাকাসহ বিলের পার্শ্ববর্তী ফটকি ও বেগবতি নদীর সাথে সংযোগ স্থাপন করে মোট ২২ কিলোমিটার খাল খনন করা হয়। সেই সাথে সেচ সুবিধা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে বিলের তীরবর্তী এলাকায় ৯৫০ মিটার লম্বা ১৫টি সেচ নালা নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে।

এর ফলে জেলার এ তিন উপজেলার মোট ২ হাজার ৫০ হেক্টর আবাদী জমির জলাবদ্ধতা নিরসন হওয়ায় পাশপাশি সেচ নালার মাধ্যমে ৪৫০ হেক্টর জমিতে সেচ সুবিধা পাচ্ছেন কৃষকরা। এতে করে পতিত জমি থেকে ৫ হাজার ১১২ টন অতিরিক্ত খাদ্য শস্য উৎপাদিত হচ্ছে । এর পাশপাশি ১.২০ লাখ জন-দিবস কর্মসংস্থান সৃষ্টির সুযোগ তৈরি হয়েছে।
বিএডিসির দেয়া তথ্য মতে, বিভিন্ন প্রাকৃতিক ও মানবসৃষ্ট কারণে মাগুরা জেলার নবগঙ্গা ফটকি, কুমার, চিত্রা নদীর পানি প্রবাহ হ্রাস, নদীর ঢালে ও মোহনায় অতিরিক্ত পলি জমাসহ সমুদ্র পৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধির কারণে জেলার বিভিন্ন বিলসহ অনেক নিচু জায়গায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। তাদের দেয়া হিসাব মতে, জেলায় মোট ১১ হাজার ২৫০ হেক্টর জমিতে জলাবদ্ধতা রয়েছে। যার মধ্যে ২২ কিলোমিটার খাল খননের মধ্যেমে বেশকিছু এলাকার জলাবদ্ধাতা দূর করা সম্ভব হয়েছে।

খালের সংলগ্ন জাগলা, ভাটুয়াইল, ভুলবাড়িয়া ও নরপতির খাল সংলগ্ন এলাকার কৃষক মনিমন্ডল, সাইফুল ইসলাম, বিজন দাস, সৌমেন দাস ও নিতাই বিশ্বাসসহ অনেকে জানান, খাল খননের আগে এখানকার বিলসহ অনেক স্থানের জমি জলাবদ্ধ হয়ে থাকতো। বর্তমান সরকারের সময়ে খাল খননের ফলে জমির পানি খালে এসে জমা হয়ে জলাবদ্ধতা নিরসন হওয়ায় এসব জমিতে তারা ফসল উৎপাদনের পাশাপাশি এর পানি বিভিন্ন কাজে তারা ব্যবহার করতে পারছেন। এ ছাড়া পাম্পের সাহায্যে সেচ নালার মাধ্যমে স্বল্প খরচে খালে জমে থাকা পানি দিয়ে জমিকে সেচ দিতে পারছেন সহজেই। এ কারণে এসব সুবিধা অব্যাহত রাখতে প্রতি বছর খাল ও সেচ নালা সংস্কারের দাবি জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট এলাকার কৃষকরা।

একই এলাকার মৎস্যজীবী পরিমল বিশ্বাস, গোপাল বিশ্বাস, সুকেষ বিশ্বাস জানান, এক সময় মাগুরাসহ আশপাশের জেলায় দেশীয় মাছের অধিকাংশের যোগান আসত বিভিন্ন বিল, নদীসহ বিভিন্ন জলাশয় থেকে। কিন্তু খাল খনন না করায় এসব জলাশয়ের নাব্যতা কমে যাওয়ার কারণে পানি প্রবাহ বাধাগ্রস্ত হচ্ছিল। বর্তমান সরকার খাল খননের কারণে তারা এসব এলাকায় মাছ চাষ করে দেশীয় মাছসহ অন্যান্য মাছের যোগান বাড়তে সক্ষম হচ্ছেন।

বিএডিসি’র যশোর অঞ্চলের ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী প্রকৌশলী চঞ্চল কুমার মিস্ত্রি বলেন, ‘জলাবদ্ধতা দূরীকরণ ও সেচ উন্নয়ন কর্মসূচির আওতায়’ মাগুরা জেলার বিভিন্ন এলাকায় বিলসহ নিচু এলাকার জলাবদ্ধতা নিরসন ও সেচ সুবিধা বৃদ্ধির লক্ষ্যে খাল খনন ও সেচ নালা নির্মাণ বর্তমান সরকারের একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ। এই কর্মসূচির আওতায় জেলার সদর, শালিখা ও মহম্মদপুর উপজেলায় বিভিন্ন বিলসহ নিচু এলাকায় ২২ কিলোমিটার খাল খননের ফলে কৃষকরা ব্যাপকভাবে উপকৃত হচ্ছেন। সেই সাথে কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হওয়ায় এসব এলাকার মানুষ আর্থিকভাবে লাভবান হচ্ছেন।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সেপ্টেম্বর ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহঃ শুক্র শনি রবি
« আগ    
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০

মাগুড়া সদর

ফেসবুকে আমরা

বিভাগ

দিনপঞ্জিকা

সেপ্টেম্বর ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহঃ শুক্র শনি রবি
« আগ    
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০

রাজনীতি

অর্থনীতি