আজকের পত্রিকাtitle_li=মাগুরা সদরtitle_li=রাজনীতি প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতেই পলাশ হত্যাকাণ্ড

প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতেই পলাশ হত্যাকাণ্ড

srtgredghrtyমাগুরা নিউজ.কম:প্রতিপক্ষকে ফাঁসানোই মাগুরা সদর উপজেলার কুচিয়ামোড়া গ্রামের পলাশ মোল্লা হত্যার মূল কারণ। চাঞ্চল্যকর ওই হত্যা মামলা দায়েরের ৮ মাস পর পলাশের বন্ধু সুমন ফকির ১৬৪ ধারায় এ জবানবন্দি দিয়েছেন।
মাগুরার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট-১ এর আদালতে দেওয়া এক জবানবন্দিতে সুমন  জানান- নিহত পলাশ কুচিয়ামোড়া গ্রামের মাতবর রুকু মোল্লার নাতনির সঙ্গে ফোনে কথা বলত। এতে তাদের পরিবারিক অশান্তি সৃষ্টি হয়। এ কারণে রুকু মোল্লা তার ওপর ক্ষিপ্ত হয়। ২০১৩ সালের  ১২ অক্টোবর  গভীর রাতে ওই গ্রামের একটি মাঠের মধ্যে রুকু মোল্লার নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসীর হাতে পলাশ খুন হয়। যা সুমন নিজে দেখে ফেলেন বলে জবানবন্দিতে উল্লেখ করেছেন। 

এ ঘটনার পরদিন রুকু মোল্লা প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে নিহত পলাশের বাবা মো. শওকত মোল্লাকে দিয়ে প্রতিপক্ষ নান্নু শিকদারসহ ২১ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ হত্যা মামলায় ইতোমধ্যে প্রতিপক্ষের ২১ জন ৩ থেকে ৬ মাস করে হাজতবাস করে জামিনে রেব হন। 

এর মধ্যে জেলখানায় হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা গেছেন ওই মামলার আসামি সত্তোরোর্ধ  রিয়াজেল মোল্লা। 

এ ব্যাপারে হত্যা মামলার বাদী শওকত মোল্লার কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি  জানান- ঘটনার ৮ মাস পর সুমনকে রাতের আধারে তুলে নিয়ে গিয়ে এ জবানবন্দি আদায় করা হয়েছে। আমরা এর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেব।  

ওই মামলার আসামি মো. নান্নু শিকদার  জানান- এ মামলার পর থেকেই আমরা বলে আসছিলাম যে এটি একটি ষড়যন্ত্রমুলক মিথ্যা মামলা। আমাদের ফাঁসাতেই রুকু মোল্লা শওকত মোল্লাকে দিয়ে এ মামলা দায়ের করিয়েছেন। যা সুমনের জবানবন্দিতে স্পষ্ট হয়েছে। আমরা এ ঘটনার সুবিচার চাই। 

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই নাসির উদ্দিন  জানান,সুমনের জবানবন্দির পরিপ্রেক্ষিতে হত্যার অভিযোগে ওই গ্রামের সামাজিক দলনেতা রুকু মোল্লাসহ সুমন ফকির ও সুরজিৎ নামে তিনজনকে পুলিশ গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠিয়েছে। এছাড়া অন্যান্য আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে তিনি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ডিসেম্বর ২০১৭
সোম মঙ্গল বুধ বৃহঃ শুক্র শনি রবি
« নভে    
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১

মাগুড়া সদর

ফেসবুকে আমরা

Pages