ফিচার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি শনিবার সন্ধ্যায় মেতেছে স্প্যানিশ মূর্ছনায়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি শনিবার সন্ধ্যায় মেতেছে স্প্যানিশ মূর্ছনায়।

এই সুরের আবেশে অংশ নেন স্প্যানিশ গিটারিস্ট দানিয়েল ‘মেলন’ জিমেনেজ ও মারিয়ানো আবেলো। আয়োজনে ছিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্প্যানিশ ভাষা ও সংস্কৃতি চর্চাকেন্দ্র।

আয়োজকদের পক্ষে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্প্যানিশ ভাষা ও সংস্কৃতি চর্চাকেন্দ্রের সমন্বয়কারী আমপারো পোরতা প্রথমেই স্মরণ করেন সদ্যপ্রয়াত কথার জাদুকর গ্যাবরিয়েল গার্সিয়া মার্কেজ ও পাকো দে লুসিয়াকে।

এরপরই মঞ্চে আসেন আবেলো ও জিমেনেজ। শুরুটা যেন হল বিষাদময়। গিটারের ‘ফ্লামেঙ্কো’ ঝংকারে মনে হয় যেন আন্দালুসিয়ায় মরু হাওয়া খেলে যাওয়া কোনো এক দুর্গ থেকে ভেসে আসছে জিপসি গিটারিস্টের করুণ সুর।

এরচেয়ে ভালো শ্রদ্ধা পাকো দে লুসিয়াকে কীভাবে দেখানো যেতে পারে!

জিমেনেজ বাজালেন শুধুই গিটার! ছয় তারের মুন্সিয়ানার পাশাপাশি গিটার উল্টিয়ে তবলার মতো করে বাজালেন। সঙ্গী তবলচির সঙ্গে যুগলবন্দি করলেন কিছুটা সময়, একেবারে স্প্যানিশ কায়দায়।

15_TSC-Auditorium_190414_0009বলে রাখা ভালো, এই জিমেনেজ ২০১০ থেকে ২০১২ সালে রবি শংকরের মেয়ে আনুশকা শংকরের সঙ্গে ‘ওয়ার্ল্ড ট্যুর’ করেছেন।

কনসার্টের এক ফাঁকে এই ব্যাপারে প্রশ্ন রাখতেই জিমেনেজ বলেন, “সারা ইউরোপ, আমেরিকা, ভারতসহ বিভিন্ন দেশে বাজিয়েছি। ভারতে হয়েছে অসাধারণ অভিজ্ঞতা। রাজস্থানের ‘বানজারা’ নৃত্যশিল্পীদের সঙ্গে বাজিয়ে অবাক হয়েছি। কারণ তাদের নাচের কিছু বিষয়ের সঙ্গে ফ্লামেঙ্কো ধারার অদ্ভুত মিল রয়েছে।”

এদিকে আবেলো বাজালেন বাঁশি ও সাক্সোফোন। গিটারের সঙ্গে যুগলবন্দি যেমন অসাধারণ তেমনি তার দ্রুতলয়ের বংশীবাদন। আবার শব্দের ওঠানামায় উপস্থিত দর্শকদের দেখিয়ে দিলেন কতটা পটু শিল্পী তিনি।

সংগীতের একজন শিক্ষক, যথেষ্ট সদালাপি ভদ্রলোক, টিএসসি অডিটরিয়ামের অসহ্য গরমে ঘেমে-নেয়ে একাকার হলেও কথা বলবার সময় হাসিটি ঠিকই টিকে থাকল।

আবেলো বলেন, “এই নিয়ে দ্বিতীয়বার ঢাকায় এলাম। এত গরমেও ‘হাউজফুল’ দর্শকের সামনে বাজিয়ে খুবই আনন্দিত আমি।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ডিসেম্বর ২০১৭
সোম মঙ্গল বুধ বৃহঃ শুক্র শনি রবি
« নভে    
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১

মাগুড়া সদর

ফেসবুকে আমরা

Pages